দিনাজপুর বার্তা ২৪ | Dinajpur Barta 24

ব্রেকিং নিউজ
হাবিপ্রবিতে স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থীদের সায়েন্টিফিক পেপার এবং থিসিস লিখা সংক্রান্ত ৪ দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ সমাপ্ত
মোফাচ্ছিলুল মাজেদ নভেম্বর ১১, ২০২২, ১১:৪৯ পূর্বাহ্ণ | পড়া হয়েছে ১২৫ বার |

হাবিপ্রবি, দিনাজপুর: হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ইনস্টিটিউট অব রিসার্চ এন্ড ট্রেনিং (আইআরটি)’র আয়োজনে স্নাতকোত্তর পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের সায়েন্টিফিক পেপার, থিসিস লেখা এবং পরিসংখ্যানগত বিশ্লেষণের উপর ৪ (চার) দিনব্যাপি প্রশিক্ষণ কর্মশালা আজ সমাপ্ত হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের অডিটোরিয়াম-২ তে সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত কর্মশালার সমাপনি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এম কামরুজ্জামান। ৪ দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালায় বিশেষ অতিথি হিসেবে প্রতিদিন স্ব স্ব অনুষদের সম্মানিত ডীনগণ উপস্থিত ছিলেন। প্রশিক্ষণ কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন ইনস্টিটিউট অব রিসার্চ এন্ড ট্রেনিং (আইআরটি)’র পরিচালক প্রফেসর ড. এস. এম. হারুন-উর-রশীদ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন আইআরটি’র সহযোগী পরিচালক প্রফেসর ড. বেগম ফাতেমা জোহরা।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এম. কামরুজ্জামান বলেন, ১৯৯৯ সালের ১১ সেপ্টেম্বর বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যখন হাবিপ্রবির ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন করেন তখন তিনি বলেছিলেন হাবিপ্রবি হবে মূলত কৃষিভিত্তিক এবং তার পাশাপাশি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির অন্যান্য শাখায়ও শিক্ষা কার্যক্রম অব্যহত থাকবে। ফলে কৃষির (ভেটেরেনারি, ফিসারিজ ও এগ্রিকালচার) উপর এখানে গুরুত্ব আরোপ করা হয়েছে। সার্বিকভাবে কৃষির উপর গুরুত্বের কারণেই করোনা মহামারি, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের পরও বাংলাদেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পন্ন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বার বার বলছেন বাংলাদেশে কোন কৃষি জমি ফাকা রাখা যাবেনা, ২০২৩ এ বিশ্বমন্দা দেখা দেয়ার সম্ভাবনা আছে। এর পূর্ব প্রস্তুতির কথা বিবেচনা করেই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কৃষির উপর গুরুত্ব দিয়েছেন। এই পূর্ব প্রস্তুতি রাখার ক্ষেত্রে আমরা যারা কৃষি গ্র্যাজুয়েট তাদের উপর দায়িত্ব সবচেয়ে বেশি। খাদ্য উৎপাদন বৃদ্ধি ও নতুন নতুন জাত উদ্ভাবনের উপর আমাদের গুরুত্ব আরোপ করতে হবে। তিনি বলেন, আমাদের শিক্ষার্থীদের গবেষণার সুযোগকে কাজে লাগিয়ে দক্ষ মানব সম্পদ হিসেবে গড়ে উঠতে হবে। বর্তমান যুগ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির যুগ তাই এর উপর গুরুত্ব প্রদান করতে হবে। দক্ষ মানুষ হিসেবে গড়ে উঠার লক্ষ্যে এ ধরনের প্রশিক্ষণ কর্মশালা অবশ্যই সহায়ক হবে। এজন্য আমি আইআরটি সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানাই।
উল্লেখ্য, আজকের উক্ত প্রশিক্ষণ কর্মশালায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরিনারি অনুষদের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন। ৪ দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালায় ধারাবাহিকভাবে সকল অনুষদের মাস্টার্সের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন।

এই পাতার আরো খবর -
৯ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
দিনাজপুর, বাংলাদেশ
ওয়াক্তসময়
সুবহে সাদিকভোর ৫:২৭ পূর্বাহ্ণ
সূর্যোদয়ভোর ৬:৪৫ পূর্বাহ্ণ
যোহরদুপুর ১২:২০ অপরাহ্ণ
আছরবিকাল ৪:১৮ অপরাহ্ণ
মাগরিবসন্ধ্যা ৫:৫৫ অপরাহ্ণ
এশা রাত ৭:১৩ অপরাহ্ণ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদকীয়